শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ০৭:১৫ অপরাহ্ন

রাবিপ্রবিতে শেখ রাসেল এর ৫৯ তম জন্মদিন ও শেখ রাসেল দিবস-২০২২ উদযাপন ও দোয়া কামনা

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় বৃহস্পতিবার, ২০ অক্টোবর, ২০২২
  • ৩৩ বার পড়া হয়েছে

১৮ অক্টোবর ২০২২ তারিখ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল এর ৫৯ তম জন্মদিন ও শেখ রাসেল দিবস-২০২২ উপলক্ষে রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দীপংকর তালুকদার ভবনের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভার আগে শেখ রাসেল এর ৫৯ তম জন্মদিন ও শেখ রাসেল দিবস-২০২২ উপলক্ষে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এবং দোয়া কামনা করেন রাবিপ্রবি মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. সেলিনা আখতার মহোদয়, খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাবিপ্রবি রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য সাংসদ জনাব দীপংকর তালুকদার এমপি এবং রাবিপ্রবি উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. কাঞ্চন চাকমাসহ অন্যান্যরা।
সভায় রাবিপ্রবি মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. সেলিনা আখতার মহোদয়ের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাবিপ্রবি রিজেন্ট বোর্ডের সদস্য সাংসদ জনাব দীপংকর তালুকদার এমপি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাবিপ্রবি উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. কাঞ্চন চাকমা । এছাড়া আলোচনা সভায় রাবিপ্রবি প্রক্টর জনাব জুয়েল সিকদার, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের সহকারি পরিচালক মোঃ আবদুল গফুর, ফরেস্ট্রি এন্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব সুপ্রিয় চাকমা, ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব নেইংম্রাচিং চোধুরী ননি, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব ধীমান শর্মা, ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান(ইন-চার্জ) জনাব খোকনেশ্বর ত্রিপুরা এবং হিসাব রক্ষক জনাব সালাহউদ্দিন বক্তব্য প্রদান করেন। সভা সঞ্চালনা করেন রাবিপ্রবি রেজিস্ট্রার( ভারপ্রাপ্ত) জনাব অঞ্জন কুমার চাকমা।
সভায় বক্তারা ১৯৭৫ সালে শিশু শেখ রাসেলকে হত্যা ইতিহাসের একটি জগণ্য অপরাধ হিসেবে আখ্যায়িত করেন। বক্তারা এরকম হত্যাকান্ড যেন ভবিষ্যতে বিশ্বে কোথাও না হয় এ কামনা করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ দীপংকর তালুকদার বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে যে হত্যাকান্ড হয়েছে তা পৃথিবীতে নজিরবিহীন। এটা ছিল সমষ্টিগত চেতনার বিরুদ্ধে হত্যাকান্ড। ফুল প্রস্পুতি হওয়ার আগে শেখ রাসেলকে হত্যা করা হয়েছে। শিশু রাসেল বেঁচে থাকলে হয়তো দেশের জন্য অনেক অবদান রাখতো। তিনি আরো বলেন, “ভবিষ্যতে বাংলাদেশ যেন শিশুদের জন্য নিরাপদ হয়, এভাবে শিশু যেন অকালে মারা না যায় এই কামনা করি। আগামী প্রজন্মের শিশুদের জন্য নিরাপদ বাসযোগ্য পৃথিবী যেন রেখে যেতে পারি সবাইকে এই অংগীকার করতে হবে।”
উপাচার্য ড. সেলিনা আখতার বলেন, শিশু রাসেলকে হত্যা একটা জগণ্য অপরাধ ছিল। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধংস করার জন্য ১৯৭৫ সালের হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে। স্বাধীন বাংলাদেশ যেন মাথা উচু করে দাড়াতে না পারে এ হত্যাকান্ড তারই অংশ।
উপ-উপাচার্য ড. কাঞ্চন চাকমা বলেন, উপ-উপাচার্য ড. কাঞ্চন চাকমা বলেন, “আমরা শেখ রাসেলকে হারিয়েছি – সাথে হারিয়েছি বড় সম্ভাবনাকে।”
আলোচনা সভা শেষে রাবিপ্রবি প্রশাসনিক ভবনের সামনে বৃক্ষ রোপণ করেন রাবিপ্রবি মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. সেলিনা আখতার এবং উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. কাঞ্চন

এই বিভাগের আরো সংবাদ