মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২২ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশ সরকারী কর্মচারী সমম্বয় পরিষদ রাঙ্গামাটি শাখার ১ম সভা অনুষ্টিত।

নিজস্ব প্রতিবেদক (গিরি সংবাদ)
  • প্রকাশের সময় শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬০ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ সরকারী কর্মচারী সমম্বয় পরিষদ রাঙ্গামাটি শাখার ১ম সভা অনুষ্টিত। রাঙ্গামাটি জেলার সরকারী বিভিন্ন বিভাগের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেনী কর্মচারীদের সকল সংগঠন নিয়ে গঠিত হয় বাংলাদেশ সরকারী কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখা। পূর্বের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ন হওয়ায় গত ৭ জানুয়ারী-২০২১ইং সমম্বয় পরিষদের সকল সদস্যদের উপস্থিতিতে সকল নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্তক্রমে ২১ উপদেষ্টা ও ৫১ সদস্য বিশিষ্ট পুর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। এতে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের মোঃ আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হন সড়ক জনপথ বিভাগের মোঃ আবুল হাসেম।
গতকাল ২৩ সেপ্টেম্বর বিকাল সাড়ে ৫টায় মোঃ আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে জেলার ৪র্থ শ্রেনী কর্মচারী সমিতির মিলনায়তনে নব নির্বাচিত এ কমিটির ১ম পরিচিতি সভা অনুষ্টিত হয়।
এতে উপদেষ্টা মন্ডলীর সম্মানিত সদস্য আব্দুল শুক্কুর ( রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ),সহ-সভাপতি এম মনিরুল ইসলাম(জেলা প্রশাসন),জনাব মোক্তার আহম্মদ (সড়ক ও জনপথ বিভাগ রাঙ্গামাটি),এবিএম তোফায়েল উদ্দিন (সওজ),মলেন্দু তংচঙ্গ্যা( জেলা প্রশাসন কার্যালয়),জনাব জাকির হোসেন(পাঃ চট্টঃ উঃ বোর্ড) ও সমন্বয় পরিষদের অন্যান উপদেষ্টা, কর্মকর্তা এবং সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম, এবং সাংগঠনিক বিষয়ের উপর বক্তব্য রাখেন,সহ-সভাপতি আব্দুল করিম,সহ-সভাপতি আব্দুল মালেক,যুগ্ম সম্পাদক সোহেল চাকমা,উপদেষ্টা কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী প্রমূখ।
সভায় বক্তারা বলেন, আমাদের ঐক্যই পারে আমাদের সকল দাবী দাওয়ার সফলতা আনতে,তাই সকলকে সংগঠনের সকল কর্মসূচিতে সতঃস্ফুর্ত উপস্থিতির মাধ্যমে সাংগঠনিক কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। বক্তারা বলেন- ইতিপূর্বে,পার্বত্য অঞ্চলে পাহাড়ী ভাতা ৩০% ছিল। দূর্ভাগ্য হেতু গত ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ ইং ৮ম জাতীয় পে-স্কেলে পাহাড়ী ভাতা কমিয়ে দেওয়ার কারণে রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জেলা সমূহের পার্বত্য সরকারী কর্মচারীদের হতাশ করেছে। এনিয়ে সভায় বক্তারা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং পাহাড়ী ভাতা ও মহার্ঘ্য ভাতা দ্রুত কার্যকরে আশু পদক্ষেপ গ্রহনে জোর দাবী জানানো হয়। এছাড়া অবসরকালীন প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা সহজতর ও স্বল্প সময়ে প্রাপ্তির নিশ্চয়তায় ব্যবস্থা গ্রহনেরও দাবী জানানো হয়। #

এই বিভাগের আরো সংবাদ