সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০৮ অপরাহ্ন

পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষনের প্রশিক্ষণ

জহির রায়হান, বান্দরবান থেকে:
  • প্রকাশের সময় মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬ বার পড়া হয়েছে

বান্দরবানে পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষনের উপর প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু হয়েছে। ৩দিনব্যাপী বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও কারবারীদের এই প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।
মঙ্গলবার সকালে আলিকদমের দামতুয়া প্রশিক্ষণ হলরুমে বিএনকেএস এর চলমান প্রকল্পের প্রশিক্ষণ সহযোগী (ট্রেনিং এসোসিয়েট) পারমিতা চাকমার সঞ্চালনায় প্রশিক্ষনে প্রধান অতিথি হিসেবে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য দুংড়ি মং মার্মা উপস্থিত থেকে প্রশিক্ষনে উদ্বোধন করেন।
এসময় বিএনকেএস এর ম্যানেজমেন্ট কমিটির পক্ষ থেকে প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর উবানু মারমা সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন। এছাড়াও অতিথি হিসেবে গ্রাউস এনজিও সংস্থা প্রতিনিধি মংউচিং মারমা, চাইম্প্রা মৌজা হেডম্যান চাথুই প্রু মারমা, হেডম্যান রেংপুং ¤্রাে, হেডম্যান অংহ্লাচিং মারমা, হেডম্যান লাংনেট ¤্রাে, হেডম্যান ঞোমং মার্মা সহ বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও কারবারীরা উপস্থিত ছিলেন। প্রথমদিন প্রশিক্ষণের সহায়কের ভূমিকা পালন করেন কারবারী আগষ্টিন ত্রিপুরা।
প্রশিক্ষনে প্রধান অতিথির বক্তব্য বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য দুংড়িমং মার্মা বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে অগ্রযাত্রায় বিএনকেএস এর মতো বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহে ভূমিকা বা অবদান অনস্বীকার্য। সরকারের পাশাপশি বিএনকেএস এর মতো বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহ বান্দরবান জেলায় বিশেষ অবদান রেখে চলেছে। তিনি আরো জানান, বান্দরবান বোমাং সার্কেলের প্রথাগত হেডম্যান, কারবারীদের নিয়ে প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ ও মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষনের উপর প্রশিক্ষণটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে জানান। তিনি আরো বলেন, প্রশিক্ষণটি হেডম্যান ও কারবারীদের সামাজিক বিচার-সালিশ ব্যবস্থাকে আরো গতিশীল করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
প্রশিক্ষণের চাইম্প্রা মৌজা হেডম্যান চাথুই প্রু মারমা জানান, হেডম্যান ও কারবারীদের পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষণ উপর প্রশিক্ষণটি আলিকদম উপজেলার বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও কারবারীদের সক্ষমতা বৃদ্ধি হবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
সূচনা বক্তব্যে বিএনকেএস এর প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর উবানু মারমা জানান, বিএনকেএস বিশ্বাস করে সরকারের পাশাপাশি এনজিও সংস্থার প্রতিষ্ঠান সমূহ পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা ও মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষণ বিষয়ক প্রশিক্ষণটি হেডম্যান ও কারবারীদের দক্ষতা বাড়বে এবং সামাজিক প্রথাগত বিষয় আরো সম্পৃদ্ধি লাভ করবে বলে জানান। তিনি প্রকল্পটি বাস্তবায়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইউএনডিপি-এসআইডি-সিএইচটি সহযোগিতায় বান্দরবানের বিএনকেএস, গ্রাউস ও তাহজিংডং প্রকল্পটি বাস্তবায়নে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানান। তারই ধারবাহিকতায় আলিকদম উপজেলা প্রথাগত হেডম্যান ও কারবারীদের নিয়ে প্রথম ব্যাচের প্রশিক্ষণটি আগামী ০৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলমান থাকবেন বলে জানান।
এনজিও সংস্থা গ্রাউসের পক্ষে প্রজেক্ট মনিটরিং এন্ড রির্পোটিং অফিসার মংউচিং মারমা বলেন, বিএনকেএস ও তহজিংডং এর সাথে সমন্বয় মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের বান্দরবান পার্বত্য জেলার ৭টি উপজেলার ৯৬টি মৌজার ও ৩৩টি ইউনিয়নের কার্যক্রমটি চলমান রয়েছে। তাছাড়াও ৫টি ইউনিয়নের (লামা সদর, রুপসী পাড়া, গজালিয়া, ফাইতং এবং আজিজনগর) গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ কার্যক্রমটিও অব্যাহত আছে বলেন জানিয়েছেন।
“পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের” উদ্যোগে আলিকদম উপজেলা ৩ দিন ব্যাপী হেডম্যান ও কারবারীদের পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রথাগত বিচার ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে মামলা ব্যবস্থাপনা ও নথি সংরক্ষনের উপর প্রশিক্ষণে আলিকদম উপজেলার ৩৫জন বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও কারবারীরা অংশনেয়।

এই বিভাগের আরো সংবাদ